shadow

দর্শনা পরিবারের এজিএম সম্পন্ন । নতুন কার্যনির্বাহী কমিটি ঘোষণা

দর্শনা পরিবারের গুণীজন সম্মাননা ও ক্রেস্ট প্রদান পর্ব
ছবিঃ দর্শনা পরিবারের গুণীজন সম্মাননা ও ক্রেস্ট প্রদান পর্ব

ঢাকাস্থ দর্শনাবাসির সংগঠন দর্শনা পরিবারের বার্ষিক সাধারন সভা গত ১০ মার্চ শুক্রবার ঢাকার শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত বার্ষিক সাধারন সভায় সমিতির প্রায় ৫২০ জন নিবন্ধিত সদস্য ও তাঁদের পরিবারের সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার প্রথম অংশে এজিএম ও দ্বিতীয়ভাগে আনন্দ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। বার্ষিক সাধারন সভায় উদ্বোধক ছিলেন দর্শনা পরিবারের সন্মানিত উপদেষ্টা ও মাননীয় সাংসদ (চুয়াডাঙ্গা-২) জনাব আলি আজগর টগর।

দর্শনা পরিবারের বেশিরভাগ উপদেষ্টার উপস্থিতিতে সমিতির বিগত দিনের কার্যাবলী উপস্থাপন করেন ডিপির সাধারন সম্পাদক জনাব আব্দুল হামিদ পিন্টু। ডিপির কোষাধ্যক্ষ জনাব আলমগীর হোসেন এর বার্ষিক আয়-ব্যয় রিপোর্ট সদস্যদের সামনে উপস্থাপনের পর বিগত কমিটির কর্মকাণ্ডের উপর একটি উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে ডিপির সাধারন সদস্যগন, উপদেষ্টা পরিষদ, কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন ও সভায় বিগত সভার কার্যাবলী অনুমোদন করেন। দর্শনা পরিবারের সভাপতি মোঃ রফিকুজ্জামান গত দুই বছরে ডিপির বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে যে সকল ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান সাহায্য সহযোগিতা করেছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বার্ষিক সাধারন সভায় আলোচনার ভিত্তিতে গঠনতন্ত্র সংশোধন করে কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য সংখ্যা ৪৫ ও উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সংখ্যা ১৯-এ নিধারন করা হয়। উক্ত সভায় আগামী ২০১৭-২০১৯ বছরের জন্য উপদেষ্টা পরিষদ ও কার্যনির্বাহী পরিষদ এর সদস্য চূড়ান্ত করা হয়। সদস্যদের অনুমোদন সাপেক্ষে ডিপির কার্যনির্বাহী পরিষদের নতুন সভাপতি হিসাবে সাবেক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মোঃ হামিদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক পদে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জনাব আব্দুল হামিদ পিন্টু দায়িত্বপ্রাপ্ত হন।

বার্ষিক সাধারন সভা শেষে ৬ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে দর্শনার জন্য অনন্য অবদান রাখায় দর্শনা পরিবারের পক্ষ থেকে গুণীজন সম্মাননা ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। দর্শনার উন্নয়নে অনন্য ভূমিকা রাখায় যে সকল গুণীজনদের সম্মাননা দেওয়া হয় তারা হচ্ছেন মুক্তিযুদ্ধে জনাব তাহের উদ্দিন খাঁন (মরণোত্তর); শিক্ষায় শিক্ষাবিদ জনাব ফজলুল কবির (মরণোত্তর); ক্রীড়ার জনাব নাহার উদ্দিন বিশ্বাস (মরণোত্তর); শিল্প-সাংস্কৃতিতে জনাব ডাঃ সামসুল আলম (মরণোত্তর); সামাজিক উদ্যোগতা ও সমাজ উন্নয়নে জনাব মহাসিন আলী; নারী উন্নয়নে জনাব মমতাজ আরা বেগম।

এজিএম পর্ব শেষ হলে দ্বিতীয়ভাগে আনন্দ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়; যেখানে বাচ্চাদের জন্য ছিল বিভিন্ন খেলাধুলা ও আধুনিক রাইড়ে চেপে উৎসবে মেতে দিন কাটানোর সুযোগ। মধ্যাহ্ন ভোজ এর পর পরিবারের সদস্য ও তাদের সন্তানদের পরিবেশনায় ছিল গল্প, কবিতা আবৃতি, নৃত্য ও সঙ্গীত অনুষ্ঠানের আয়োজন। পরে অতিথি শিল্পী হিসাবে সঙ্গীত পরিবেশন করেন দেশ বরেণ্য শিল্পী খুরশিদ আলম, আঁখি আলমগির, নকুল কুমার বিশ্বাস ও দর্শনার কৃতি সন্তান শফিক তুহিন। সঙ্গীত অনুষ্ঠান শেষে এক আকর্ষণীয় র‍্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়।

Submit Comment

দর্শনা পরিবার © কপিরাইট ২০২১ । কারিগরি সহায়তা : এড্রেস বাজার ডট কম